হাইমচরে যুবকের রহস্যজনক মৃত্যু, স্ত্রী গ্রেফতার

হাসান আল মামুন :
হাইমচরে এক যুবকের রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। মৃত ব্যক্তি উপজেলার গন্ডামারা গ্রামের তোফায়েল আহমেদের ছেলে আরমান (২৬)। বৃহস্পতিবার সকালে নিহতের লাস চাঁদপুর মর্গে পাঠিয়েছে হাইমচর থানা পুলিশ। এ ঘটনায় মৃত আরফানের বাবা বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। স্বামীকে হত্যা কারার অভিযোগে স্ত্রী সাথী বেগম (২৫ কে গ্রেফতার করেছে হাইমচর থানা পুলিশ। নিহতের মাথায় আঘাতের ফলে রক্তখরণের চিহ্ন ছিলো।
পারিবারিক সূত্রে জানাজায়, আরমান ও তার স্ত্রী সাথী বেগমের সাথে দীর্ঘ দিন থেকেই তাদের পারিবারিককলহ গেলেই থাকতো। শেষ গতকাল বুধবার কাজ থেকে ফিরে আসার পর তাদের স্বামী স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হয়। ঐ দিন সন্ধ্যায় আরমানের লাশ তার ঘরে ফাঁসিতে ঝুলন্ত অবন্থায় পাওয়া যায়। তবে মৃত আরমানের মাথায় আঘাত করে তাকে হত্যা করে ফাঁসিতে ঝুলানো হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন তার পরিবার।
এ ব্যাপারে মামলার বাদী নিহতের পিতা তোফায়েল কবিরাজ জানান, আমার ছেলে কাজ করে দেরিতে আসায় ছেলের সাথে ঝগড়া করে। ছেলেকে জিজ্ঞাসা করে বাড়িতে আসতে দেরি হল কেন? সে বলেছে টাকার জন্য কাজ করছি। বউ উঠে বলল এমন টাকা প্রয়োজন নেই। কাজ করে দেরিতে বাড়িতে আসার বিষয় নিয়ে দুই জনের মধ্যে ঝগড়া হয়। সন্ধ্যায় ছেলের বউ ও তার শাশুড়িসহ লোকজন দিয়ে আমারে ছেলেকে হত্যা করে আমাকে খবর দেয় ছেলে ফাঁসি দিয়েছে। আমার ছেলের মাথা থেকে এ খনো রক্ত পড়তেছে। তাকে পরিকল্পীত ভাবে হত্যা করা হয়েছে। আমি আমার ছেলে হত্যার বিচার চাই। এর আগেও এই বউ ঘরে আগুন লাগিয়ে দিয়ে বাপের বাড়িতে চলে যায়। তাদের মধ্যে প্রায় ঝামেলা লেগে থাকতো।
এ ব্যাপারে হাইমচর থানা অফিসার ইনচার্জ মোঃ মাহবুবুর রহমান মোল্লা জানান, আরমানের মৃত্যুটি একটি রহস্যজনক মৃত্যু। তার মাথায় আঘাতের ফলে রক্তখরন ও গলায় ফাঁস দেয়ারও চিহ্ন রয়েছে। লাসটি ময়না তদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। মৃত আরমানের পিতা বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলার প্রধান আসামীকে আমরা আটক করেছি। বাকী আসামীদের ধরার অভিযান চলমান রয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেলে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *