আমাদের সম্প্রীতি নষ্ট করতে যারা আঘাত করেছে, তাদেরকে ছাড় দেয়া হবে না : বিভাগীয় কমিশনার

হাজীগঞ্জে ক্ষতিগ্রস্থ মন্দির পরিদর্শনে বিভাগীয় কমিশনার
শাখাওয়াত হোসনে শামীম :
চট্রগ্রামের বিভাগীয় কমিশনার মো.কামরুল হাসান এনডিসি বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সব সময় চেয়েছেন অসাম্প্রায়িক চেতনার বাংলাদেশ। সেই অসাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করতে যারা আঘাত করেছে, তাদেরকে ছাড় দেয়া হবে না।
গত ১৩ অক্টোবর কুমিল্লায় কোরআন অবমাননায় ঐ দিন রাতে হাজীগঞ্জে বিক্ষোভ মিছিল থেকে হাজীগঞ্জে মন্দিরে হামলায় ক্ষতিগ্রস্থ মন্দির পরিদর্শন শেষে স্থানীয় সাংবাদিক ও আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ ও সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সাথে মতবিনিময়কালে তিনি এ কথা বলেন।
এসময় তিনি বলেন, আমাদের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি আবহমান কাল থেকেই এক ও অভিন্ন। এটি শত বছরের ইতিহাস ও ঐতিহ্য এক দিনে এটি নষ্ট হবার নয়। যে ঘটনা ঘটেছে এজন্য আমরা সত্যি দুঃখিত।
তিনি বলে, আমার কথা একটাই এ অসাম্প্রদায়িক চেতনার বাংলাদেশে যারা সাম্প্রদায়িক বীজ রোপন করবো তাদেরকে আমরা ছাড় দেবো না।
তিনি বলে, একটি গোষ্ঠি আমাদের সাম্প্রদায়ীকতা বিনষ্ট করতে এবং বর্হিবিশে^ আমাদের ভাবমূর্তি খুন্ন করতে কাজ করছে। যারা এ ঘটনায় জড়িত কাউকে ছাড় দেয়া হবেনা।
তিনি বলেন, আপনাদের যে সংসদ সদস্য রয়েছে। মেজর অব. রফিকুল ইসলাম বীরউত্তম তিনি খুবই ভালো মানুষ। আপনারা তাঁর প্রশংসা করেছেন। এ জন্য আপনাদের ধন্যবাদ।
তিনি বলেন, যে ঘটনা ঘটেছে, তা তদন্ত পূর্বক দোষীদের শাস্তি দেয়া হবে। কারো প্রতি কোন অবিচার করা হবেনা। এ সময় আরো বক্তব্য রাখেন, জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ।
এর আগে বিভাগীয় কমিশনারকে ১৩ অক্টোবরের দিনে ঘটনার বিষয়ে অবহিত করেন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গাজী মাইনুদ্দিন, জেলা আওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষ আহসান হাবিব অরুন, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আহম্মদ খসরু, জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক আলহাজ¦ জসিম উদ্দিন, স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. শাহআলম, উপজেলা হিন্দু, বৌদ্ধ ও খিস্ট্রান ঐক্য পরিষদের সভাপতি অধ্যাপক স্বপন পাল, শ্রী শ্রী রাজা লক্ষ্মী নারায়ন জিউর আখড়ার সভাপতি দিলীপ কুমার সাহা, সাধারণ সম্পাদক সত্য ব্রত ভদ্র মিঠুন, লিটন পালসহ হিন্দু সম্প্রদায়ের নেতৃবৃন্দ।
উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক গাজী মোঃ মাঈনুদ্দিন, জেলা আওয়ামীলীগের অর্থ বিষয়ক সম্পাদক রোটঃ আহসান হাবীব অরুন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোমেনা আক্তার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (হাজীগঞ্জ সার্কেল) মো. সোহেল মাহমুদ পিপিএম,হাজীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ হারুনুর রশিদ, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান গোলাম ফারুক মুরাদ,মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মির্জা শিউলী পারভিন মিলি, জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান হাজী জসিম উদ্দিন, পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আহমেদ খসরু,পৌর প্যানেল মেয়র মোহাম্মদ জাহিদুল আযহার আলম, কাউন্সিলর নুরনবী সুমন তপাদার।
এ ছাড়াও আরো উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা ও পৌর আওয়ামীলীগ, যুবলীগের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক জাকির হোসেন সোহেল, পৌর যুবলীগের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক তাজুল ইসলাম, পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাছান রাব্বিসহ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও অঙ্গ-সহযোগি সংগঠনের নেতৃবৃন্দ এবং জাতীয় ও স্থানীয় পত্রিকারা প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

 

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *