প্রধানমন্ত্রী কার্যালয় কর্তৃক প্রশংসিত চাঁদপুরের জেলা প্রশাসকসহ কর্মকর্তারা

মুজিববর্ষে ভূমিহীনদের ঘর প্রদান কার্যক্রম বাস্তবায়নে
চাঁদপুর প্রতিদিন ডেস্ক :
চাঁদপুরে মুজিববর্ষে প্রধানমন্ন্রীর প্রতিশ্রæতি বাস্তবায় তথা ভূমিহীন গৃহহীনদের ভূমি ও ঘর পাইয়ে দেয়ার ব্যবস্থাপনায় নিরলস প্রচেষ্টা ও সফলতা অর্জন করায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কার্য়ালয় প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে ধন্যবাদসহ প্রশংসাপত্র পেলেন চাঁদপুরের সুযোগ্য জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সিনিয়র সচিব মোঃ তোফাজ্জল হোসেন মিয়া স্বাক্ষরিত এ প্রশংসাপত্র গত ২৮ তারিখে পাঠানো হয়। ওই প্রশংসাপত্রে সিনিয়র সচিব বলেন, বাংলাদেশের একজন মানুষও গৃহহীন থাকবে না’ মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর এ নির্দেশনা বাস্তবায়নে মুজিববর্ষে আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় ছিন্নমূল, অসহায় এবং নদীভাঙ্গণে ক্ষতিগ্রস্ত পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর প্রত্যেকের জন্য দুই শতক জমিসহ সেমিপাকা একক গৃহ প্রদানের বিশেষ উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়। ২০২১ ও ২০২২ সালে এ পর্যন্ত এ কার্যক্রমের আওতায় ১লক্ষ ৮৩ হাজার ৩টি পরিবারকে পুনর্বাসন করা হয়েছে। দেশের সকল উপজেলায় বাস্তবায়নাধীন এ কার্যক্রমে অবশিষ্ট সকল ভূমিহীন-গৃহহীন পরিবারকে পরিকল্পনা মোতাবেক নির্দিষ্ট সময়ে পুনর্বাসন সম্ভব হবে। এ কার্যক্রমে আপনার স্থানীয় নেতৃত্ব প্রশংসনীয়।
ভূমিহীন-গৃহহীন পরিবারসমূহকে জমি ও গৃহ প্রদানের মাধ্যমে পুনর্বাসনের এ মহতী কর্মে সর্বশেষ ২৬ এপ্রিল ২০২২ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৩২ হাজার ৯ শত ৪টি পরিবারকে ঈদ উপহার হিসাবে জমিসহ গৃহ প্রদান করেছেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্ভাবিত আশ্রয়ণ প্রকল্পে ১৯৯৭ সালে থেকে অদ্যাবধি ৫ লক্ষ ৪০ হাজার ১৪৮টি ছিন্নমূল, অসহায় ও ঠিকানাবিহীন ভূমিহীন-গৃহহীন পরিবারকে পুনর্বাসন করা হয়েছে।
তুমিহীন-গৃহহীন পরিবারকে জমিসহ গৃহ প্রদানের মতো চ্যালেঞ্জিং কাজটি মাঠ পর্যায়ে আপনি ও আপনার সহকর্মীগণ নিরলস পরিশ্রম করে বাস্তবায়ন করে চলেছেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নেতৃত্বে উপজেলা টাস্কফোর্স কমিটি ও উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটি এ কাজে নিরলস পরিশ্রম করছেন। স্থানীয় জনপ্রতিনিধিসহ অন্যান্য অংশীজনকে সঙ্গে নিয়ে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারী যে নিষ্ঠা, একাগ্রতা, কঠোর পরিশ্রম ও আন্তরিকতা প্রদর্শন করেছেন তা প্রশংসনীয়। এ কার্যক্রমে উপকারভোগী বাছাই, গৃহনির্মাণের জন্য খাসজমি উদ্ধার, গুণগতমান বজায় রেখে নির্ধারিত সময়ে গৃহনির্মাণ কার্যক্রম আপনারা দক্ষতার সাথে বাস্তবায়ন করে চলেছেন। সহায়-সম্বলহীন, ছিন্নমূল, ঠিকানাবিহীন মানুষদের পুনর্বাসনে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনা মোতাবেক এ মহৎ কাজে প্রজাতন্ত্রের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আন্তরিক অংশগ্রহণ ও আত্মত্যাগ বর্তমান ও ভবিষ্যতের জন্য এক উজ্জ্বল কর্ম-নিদর্শন হিসাবে বিবেচিত হবে। এক্ষণে, আমি আমার ব্যক্তিগত তরফ থেকে আপনাকে ও আপনার মাধ্যমে মাঠ প্রশাসনের সকল সহকর্মীকে অভিনন্দন জানাই। দেশের সকল ঠিকানাবিহীন মানুষকে জমিসহ গৃহ প্রদানের এ কার্যক্রমে আপনি বর্তমানের মত ভবিষ্যতেও নিবেদিত থাকবেন মর্মে আশা রাখি। একই সাথে আপনার নেতৃত্ব, সঠিক নির্দেশনা ও পরামর্শের মাধ্যমে উপজেলা পর্যায়ের টিমওয়ার্ক আরো গতিশীল হবে-এ আমার প্রত্যয়।
আপনি ও আপনার সকল সহকর্মীর প্রতি রইলো পবিত্র ঈদ-উল-ফিতরের শুভেচ্ছা।
ঈদ মোবারক।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.