মতলব দক্ষিণে স্বর্ণ ব্যবসায়ীকে গলা কেটে হত্যা, কর্মচারী আটক

নিজস্ব প্রতিবেদক :
চাঁদপুরের মতলব দক্ষিণ উপজেলার নারায়ণপুরে অমর সরকার (৩৭) নামে এক স্বর্ণ ব্যবসায়ীকে নিজ বাড়ির উঠানে গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে। ২১ ফেব্রুয়ারি দিবাগত রাত আনুমানিক ১২টা থেকে ৩টার মধ্যে এ খুনের ঘটনা ঘটতে পারে বলে ধারণা করছে স্থানীয় লোকজন। নিহত অমর সরকার মতলব উত্তর উপজেলার দুর্গাপুর ইউনিয়নের ঠেটালিয়া গ্রামের রবি ভক্তের ছোট ছেলে। অমর সরকার প্রায় ৭ বছর আগে সারপাড় দাস বাড়িতে জমি ক্রয় করে বাড়ি নির্মাণ করে পিতা-মাতা ও বড় ভাই, ভাবিসহ একসাথে বসবাস করে আসছেন। তিনি নারায়ণপুর বাজারের একজন স্বর্ণের ব্যবসায়ী।
২২ ফেব্রুয়ারি এ খবরটি জানতে পেরে সহকারী পুলিশ সুপার (মতলব সার্কেল) ইয়াসির আরাফাত ও ভারপ্রাপ্ত কর্মকতা (ওসি) মোহাম্মদ মহিউদ্দিন মিয়া সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে যায়। পরে লাশ উদ্ধার করে এবং জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ দোকানের কর্মচারী অনিককে আটক করে। পুলিশ ও পরিবার সূত্রে জানা যায়, ঘটনার দিন রাত ৯টার দিকে নিজ দোকানের কর্মচারী অনিককে সাথে নিয়ে ব্যবসায়িক কাজে মতলব বাজারে যায়। পরে সে তার বোনের বাড়িতে যায় বলে বোন মাধুবী ভক্ত জানায়। মতলবের বোনের বাড়ি থেকে রাত ১১টার সময় কর্মচারীকে সাথে নিয়ে নারায়ণপুর চলে আসেন। এরপরে আর বাড়ি ফিরেন নি অমর সরকার। রাত আনুমানিক আড়াইটার দিকে কর্মচারী অনিক পরিবারের লোকজনকে জানায় অমর সরকারের মৃত্যুর ঘটনা। পুলিশ ব্যুরো অব ইনভিস্টিগেশন (পিবিআই) ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।
জানা যায়, অমর সরকার উপজেলার নারায়ণপুর বাজারে প্রায় ২০ বছর যাবৎ স্বর্ণের ব্যবসা করে আসছেন। সে তিন ভাই-বোনের মধ্যে সবার ছোট।
এদিকে অমর সরকারের পিতা রবি ভক্ত জানান, প্রতিদিনের মতো আমি আমার ছেলের জন্য রাতে অপেক্ষা করি। সে রাত ১০টা থেকে ১১টার মধ্যেই বাড়িতে ফিরে আসে। কিন্তু ঘটনার দিন রাত গভীর হলে ছেলে বাড়িতে না আসায় আমি অস্থির হয়ে যাই। আমি আমার বড় ছেলে জীবন ভক্তকে বলি অমর কেন বাড়িতে আসে না সেজন্য ফোন করতে বলি। আমার বড় ছেলে জীবন ভক্ত জানায় তার সাথে অমরের কথা হয়েছে, সে বাড়ি আসবে।
অমর সরকারের স্ত্রী প্রিয়াংকা সরকার জানান, গত ৩/৪ দিন আগে আমি আমার বাবার বাড়িতে বেড়াতে যাই। অমরের সাথে আমার ফোনে কথা হয়েছে। আমার ও ছেলে-মেয়েদের খোঁজ-খবর নিয়েছে। ওই দিন আমি মোবাইলে কল দিয়েছিলাম। কিন্তু কল ধরে নাই। অমর সরকারের আড়াই বছরের একটি মেয়ে ও দেড় বছরের পুত্র সন্তান রয়েছে।
মতলব দক্ষিণ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহিউদ্দিন মিয়া জানান, আমরা ভোরে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যাই। খুনিরা নিহত ব্যক্তিকে ধারালো ছুরি দিয়ে গলা কেটে হত্যা করেছে। লাশ ময়না তদন্তের জন্য চাঁদপুর মর্গে পাঠানো হয়েছে। মামলার প্রস্তুতি চলছে। তবে এ ব্যাপারে পুলিশ ও পিবিআই’র পক্ষ থেকে তদন্ত চলছে।
সহকারী পুলিশ সুপার (মতলব সার্কেল) ইয়াসির আরাফাত জানান, ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে অপরাধীদেরকে আইনের আওতায় আনা হবে। এ ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে দোকানের কর্মচারী অনিককে আটক করা হয়েছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.