কচুয়ায় কৃষকের ধান কেটে দেয়া অব্যাহত রেখেছে যুবলীগের নেতাকর্মীরা

কচুয়া প্রতিনিধি :
করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে কচুয়ায় পাকা বোরো ধান কাটা শ্রমিকের সংকট দেখা দিয়েছে। এ অবস্থায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং চাঁদপুর-১ কচুয়া আসনের সংসদ সদস্য, সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ড.মহীউদ্দীন খান আলমগীর এমপি’র নির্দেশে কৃষকের ধান কাটতে মাঠে নেমেছেন স্থানীয় যুবলীগের নেতাকর্মীরা। এরই অংশ হিসেবে তৃতীয় দিনের মতো গতকাল শনিবার সকালে মনপুরা-চকমোহাম্মদপুর এলাকার দু’জ নীরিহ কৃষক মো. বজলু রহমান এর ৪০শতক ও মো. আব্দুল হাকিম এর ৬০শতক জমিসহ মোট ১০০ শতাংশ জমির পাকা ধান কেটে দেন কচয়া উপজেলা যুবলীগের নেতাকর্মীরা।
কচুয়া উপজেলার সভাপতি ও পৌর মেয়র মো. নাজমুল আলম স্বপন, সাধারন সম্পাদক মো.শাহজালাল প্রধান জালাল, কাদলা ইউনিয়ন যুবলীগের আহবায়ক মো. সফি উল্লাহ সফি ,যুগ্ন-আহবায়ক মো.আমির হোসেনের নেতৃত্বে স্থানীয় যুবলীগের নেতাকর্মীরা কৃষকের ১শ’শতক পাকা ধান কেটে বাড়ী পৌঁছে ও মাড়াই করে দেন।
উপজেলা যুবলীগের সাধারন সম্পাদক মো.শাহ জালাল প্রধান জালাল বলেন, করোনাভাইরাসের প্রভাবে দেশে ক্রান্তিকাল চলছে। এই পরিস্থিতিতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ড.মহীউদ্দীন খান আলমগীর এমপি স্যারে অসহায় মানুষের পাশাপাশি কৃষকদের পাশে থাকার নির্দেশ দিয়েছেন যুবলীগের নেতাকর্মীদেরকে সেই নির্দেশনা অনুযায়ী আমরা যুবলীগের নেতাকর্মীরা আজ অসহায় কৃষক বজলু রহমান ও আব্দুল হাকিম ১০০শতক জমির ধান কেটে দিই। যেকোনও অসহায় কৃষকের পাশে থাকবে কচুয়া উপজেলা যুবলীগ।
কচুয়া উপজেলা যুবলীগের দপ্তর সম্পাদক মো. মাইনুদ্দিন সবুজ বলেন, সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ড.মহীউদ্দীন খান আলমগীর এমপি ও কেন্দ্রীয় যুবলীগের নির্দেশে আমরা কৃষকের পাশে দাঁড়িয়েছে কচুয়া উপজেলা যুবলীগের নেতাকর্মীরা। আমরা সারা দিন কৃষকের ধান কেটে কৃষকের বাড়িতে পৌঁছে দিয়েছি। কচুয়া উপজেলার ১২ টি ইউনিয়নের প্রতিটি ইউনিয়নে কেন্দ্রীয় যুবলীগের নির্দেশনা মোতাবেক অনুযায়ী কৃষকদের ধান কেটে বাড়ি পৌঁছে দিবে। যুবলীগের নেতাকর্মীরা সে কাজ করে যাচ্ছে, যতক্ষন পর্যন্ত আমাদের দেশের প্রানঘাতি করোনা ভাইরাস স্বাভাবিক না হবে আমাদে কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।
কচুয়া উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারন সম্পাদক মো. মোছাচ্ছেল হোসেন খান বলেন, মহামারি করোনা ভাইরাস কারনে শ্রমিক সংকট থাকার কারনে অসহায় কৃষকেরা দূরচিন্তা পরেছেন, এই কৃষকের দুঃসময়ে কচুয়া যুবলীগ ও স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতাকর্মীরা তাদের পাশে আছে। তাই চলতি মৌসুমে বোরো ধান নিয়ে বিপাকে পড়া কৃষকের পাকা ধান কেটে ঘরে তুলে দিবে যুবলীগ ও স্বেচ্ছাসেবক লীগ। এছাড়া কৃষকদের যে কোন ধরণের সহযোগিতা করার চেষ্টা করবে যুবলীগ ও স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতাকর্মীরা। আর করোনা সংকটে থাকা কর্মহীন, অহসায় মানুষদেরও সহযোগীতা করা অব্যাহত স্বেচ্ছাসেবক লীগ।
ধান কেটে দেওয়ার পর কৃষক জলু রহমান, আব্দুল হাকিম কচুয়া উপজেলা যুবলীগের নেতাকর্মীদের ধন্যবাদ জানান।
এ সময় সামিজ দূরুত্বে বজায় রেখে কচুয়া উপজেলার যুবলীগের সাধারন সম্পাদক মো.শাহ জালাল উদ্দিন প্রধান, দপ্তর সম্পাদক মাইনদ্দিন সবুজ, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারন সম্পাদক মো. মোফাচ্ছেল খান, কাদলা ইউনিয়ন যুবলীগের আহবায়ক মো. সফি উল্লাহ সফি, যুগ্ন-আহবায়ক মো. কামাল হোসেন মজুমদার, মো. আমির হোসেন, সদস্য সবুজ ফরাজী, গিয়াস উদ্দিন, সাইদ বেপারী, ফারুকুল ইসলামসহ স্থানীয় যুবলীগের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.