চাঁদপুরে আসছে ৯ হাজার ৬শ ডোজ চীনা ভ্যাকসিন

নিজস্ব প্রতিবেদক :
চাঁদপুরে এবার আসছে চীনের সিনোফার্মের করোনা ভাইরাসের ভ্যাকসিন। যে কোন দিন চাঁদপুরে আসবে ৯ হাজার ৬০০ ডোজ ভ্যাকসিন। যা দিয়ে প্রথম এবং দ্বিতীয় ডোজ দেয়া যাবে ৪ হাজার ৮০০ জনকে। সোমবার এ সংক্রান্ত একটি চিঠি পেয়েছে জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়।
এদিকে চীনের সিনোফার্ম ও বেলজিয়ামের তৈরি ফাইজারের টিকা আগামী ১৯ জুন থেকে দেওয়া শুরু হবে বলেন জানিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক।
চাঁদপুরের সিভিল সার্জন ডা. মো. সাখাওয়াত উল্লাহ জানিয়েছেন, চাঁদপুরে ৯ হাজার ৬শ ডোজ আসবে। এ ভ্যাকসিন দিয়েই প্রথম এবং দ্বিতীয় ডোজ দেয়া হবে। তাই ৯ হাজার ৬শ ডোজ ভ্যাকসিন দিয়ে দেয়া যাবে ৪ হাজার ৮শ জনকে। তিনি বলেন, আজকে চিঠি পেয়েছি। বেক্সিমকোকে ভ্যাকসিনগুলো পরিবহনের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। তবে ভ্যাকসিন কবে এখানে আসবে আপাতত বলতে পারছি না। ভ্যাসসিন আসার পর স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অনুযায়ী দ্রুতই তা দেয়া শুরু হবে।
এদিকে ফাইজার ও সিনোফার্মের টিকা কর্মসূচি আগামী সপ্তাহ থেকে শুরু হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশিদ আলম। সোমবার (১৪ জুন) রাজধানীর মহাখালীতে সংক্রামক ব্যাধি হাসপাতাল পরিদর্শনে গিয়ে তিনি এ কথা জানান। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন অধিদফতরের দুই অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা ও অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা।
অধ্যাপক ডা. আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশিদ আলম বলেন, ‘দেশে কোভ্যাক্স থেকে ফাইজার বায়োএনটেকের এবং চীন থেকে সিনোফার্মের টিকা এসেছে।’ ভ্যাকসিনের তারিখ উল্লেখ না করে তিনি বলেন, ‘আগামী সপ্তাহ থেকে দেশে এই দুই কোম্পানির টিকা দান কর্মসূচি শুরু হবে।’
ফাইজারের টিকা কারা পাবেন জানতে চাইলে স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক জানান, যারা ইতোমধ্যেই টিকার প্রথম ডোজের জন্য নিবন্ধন করেছিলেন, কিন্তু প্রথম ডোজ পাননি তাদের এ টিকা দেওয়া হবে। একইসঙ্গে এর আগে যারা নিবন্ধন করে টিকা নেওয়ার জন্য অধিদফতর থেকে এসএমএস পেয়েও টিকা নেননি, তাদের আবার এসএমএস দেওয়া হবে। তারাই টিকা পাবেন।
ফাইজারের টিকা বেশি সংবেদনশীল বলে ঢাকার সব টিকাদান কেন্দ্রে এ টিকা দেওয়া যাবে না বলে এর আগে জানিয়েছিল স্বাস্থ্য অধিদফতর। আর বিশেষ এই টিকার জন্য রাজধানীর জাতীয় চক্ষু বিজ্ঞান ইনস্টিটিউট ও হাসপাতাল, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়, কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতাল ও গ্যাস্ট্রোলিভার হাসপাতালকে নির্ধারিত করা হয়েছে।
দেশে বর্তমানে কোভিশিল্ড টিকার রেজিস্ট্রেশন বন্ধ রয়েছে। কবে নাগাদ চালু হবে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘টিকা সরবরাহ পর্যাপ্ত হলে রেজিস্ট্রেশন শুরু হবে।’

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *