চাঁদপুর মেঘনায় ১৫টি বালুবাহী বাল্কহেড জব্দ, গ্রেফতার ৪৫

নিজস্ব প্রতিবেদক :
চাঁদপুর মেঘনা নদীতে অভিযান চালিয়ে বালুবাহী ১৫টি বাল্কহেড জব্দ করেছে নৌপুলিশ। ২১ ফেব্রুয়ারি সোমবার রাত ৯টা থেকে রাতভর এই অভিযান চলে চাঁদপুরের মেঘনা নদীর মোহনপুর ও তার আশপাশের এলাকায়। এ অভিযানে ৪৫ জনকে গ্রেফতার হয়েছে বলে জানিয়েছে নৌপুলিশ।
চাঁদপুরের নদী থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের পর সেগুলো পরিবহনেও ব্যবহার হচ্ছে অনেক অবৈধ বাল্কহেড। এছাড়া প্রয়োজনীয় নেভিগেশন যন্ত্রাংশ এবং দক্ষ চালক দিয়ে চালনা না করার কারণে বালুবাহী বাল্কহেডগুলো রাতে যাত্রীবাহীসহ অন্যান্য নৌ যানের জন্য হুমকি হয়ে দাঁড়ায়। এতে এসব বাল্কহেডের জন্য প্রায়ই দুর্ঘটনার কবলে পড়তে হয়। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নজরে পড়লে তৎপর হয়ে উঠে নৌ পুলিশ। এর প্রেক্ষিতে নৌ পুলিশের প্রধান অতিরিক্ত পুলিশ মহাপরিদর্শক সফিকুল ইসলামের নির্দেশে বিশেষ এই অভিযান শুরু করা হয়। এই অভিযানে নৌ থানা চাঁদপুরসহ চারটি ফাঁড়ির সদস্যরা একযোগে অংশ নেন। এতে নৌ পুলিশ চাঁদপুর অঞ্চলের প্রধান পুলিশ সুপার মোহাম্মদ কামরুজ্জামান এবং অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বেলায়েত হোসেন নদীতে উপস্থিত থেকে সরাসরি তদারকি করেন।
নৌ পুলিশ চাঁদপুর অঞ্চলের প্রধান পুলিশ সুপার মোহাম্মদ কামরুজ্জামান জানান, নৌ পুলিশের প্রধান অতিরিক্ত পুলিশ মহাপরিদর্শক সফিকুল ইসলামের নির্দেশনায় রাতের বেলায় নৌপথ নিরাপদ ও দুর্ঘটনারোধে এই বিশেষ অভিযান চালানো হয়েছে। এ অভিযানে ১৫টি বাল্কহেডসহ মোট ৪৫ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অভিযানে নদী থেকে কিছু কারেন্ট জাল জব্দ করা হয়।
পুলিশ সুপার জানান, মৎস্য আইনে ২টি এবং দণ্ডবিধিতে হবে ১৫টি মামলা। গ্রেফতারকৃতদেও আদালতে সোপর্দ করা হবে। আগামীতেও এমন অভিযান অব্যাহত থাকবে।
এদিকে চাঁদপুর নৌথানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মুজাহিদুল ইসলাম জানান, পদ্মা ও মেঘনা নদীতে অবৈধ কারেন্ট জালের বিরুদ্ধে বিশেষ অভিযানকালে নদীতে পাতানো অবস্থায় মালিকবিহীন ১২ লাখ ৫০ হাজার বর্গমিটার কারেন্ট জাল জব্দ করা হয়। যার আনুমানিক মূল্য ৭৫ লাখ টাকা। পরে জালগুলো পুড়িয়ে ধ্বংস করা হয়।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.