চাঁদপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের বিদায়-বরণ

আমরা সবাই যেন একই পরিবারের হয়ে কাজ করতে পারি : ডা. জেআর ওয়াদুদ টিপু
: আশিক বিন রহিম :
চাঁদপুর সদর উপজেলা পরিষদের আয়োজনে বদলীজনিত কারণে বিদায়ী নির্বাহী কর্মকর্তা কানিজ ফাতেমার বিদায় এবং নবাগত নির্বাহী কর্মকর্তা সানজিদা শাহনাজের বরণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল ২৮ ডিসেম্বর সোমবার সকাল ১০টায় সদর উপজেলার সম্মেলন কক্ষে মাসিক সভা শেষে অত্যন্ত পরিচ্ছন্ন এবং চমৎকার আয়োজনের মাধ্যমে এই বিদায় ও বরণ অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানটি একদিকে যেমন সাবেক কর্মকর্তার বিদায়জনিত কারণে দীর্ঘদিনের সহযোদ্ধা-সহকর্মীদের চোখে যেমন অশ্রুসিক্ত ছিলো, একই সাথে নতুন কর্মকর্তাকে বরণ করে নেবায় উচ্ছ্বাসও ছিলো।
চাঁদপুর সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম নাজিম দেওয়ানের সভাপতিত্বে ও বিদায়ী নির্বাহী কর্মকর্তা কানিজ ফাতেমা’র সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ডা. জেআর ওয়াদুদ টিপু। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন, চাঁদপুর পৌরসভার মেয়র মো. জিল্লুর রহমান জুয়েল, সদর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) ইমরান হোসেন সজিব, ভাইস চেয়ারম্যান আইয়ুব আলী বেপারী, মহিলা ভাইচ চেয়ারম্যান অবিদা সুলতানা। অতিথিদের বক্তব্য শেষে উপজেলা পরিষদের পক্ষ থেকে বিদায়ী নির্বাহী কর্মকর্তা ও নবাগত নির্বাহী কর্মকর্তাদের ক্রেস্ট এবং ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়। এছাড়াও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানদের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা উপহার প্রদান করা হয়। ফুলেল শুভেচ্ছা জানান পৌরসভার মেয়র অ্যাড. জিল্লুর রহমান জুয়েল, শিক্ষামন্ত্রী ডা. দিপু মনি এমপি’র পক্ষে চাঁদপুর প্রতিনিধি অ্যাড. সাইফুদ্দিন বাবু।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে ডা. জে আর ওয়াদুদ টিপু বলেন, আজকের এই দিনটি আমাদের জন্য একই সাথে আনন্দের আবার দুঃখের। কারণ, আমরা একজনকে বিদায় জানাচ্ছি এবং অন্যজনকর বরণ করছি। আসলে এটাই প্রকৃতির নিয়ম। বিদায়ী নির্বাহী কর্মকর্তাকে আমরা সব সময়ই আমাদের পরিবারের একজন মনে করতাম। আমরা সব সময়ই শ্রদ্ধার ও ভালোবাসার মাধ্যমে কাজ করেছি। আশাকরি নবাগত নির্বাহী কর্মকর্তা সেই জায়গাটা আরো সুন্দরভাবে ধরে রাখবেন। আমরা সবাই যেন একই পরিবারের হয়ে কাজ করতে পারি। এই পরিষদ ভালোভাবে তার কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে এবং আগামীতে আরো ভালোভাবে তার কর্যক্রম পরিচালিত করবে।
পৌর মেয়র মো. জিল্লুর রহমান জুয়েল বলেন, বিদায়ী নির্বাহী কর্মকর্তা অত্যন্ত আপনজন হিসেবে চাঁদপুরের উন্নয়ন কর্মকান্ডে দীর্ঘদিন যাবত আমাদের পাশে ছিলেন। তিনি যতটা না সরকারি কর্মকর্তা ছিলেন তার থেকে বেশি আমাদের আপন ছিলেন। আজকের এমন আবেগঘন পরিবেশে বিদায় অনেক বড় স্বীকৃতি। আমরা ওনার আগামি দিনের সাফল্য কামনা করছি। পাশাপাশি নবাগত নির্বাহী কর্মকর্তাকেও শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানাচ্ছি।
সভাপতির বক্তব্যে চাঁদপুর সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম নাজিম দেওয়ান বলেন, বেদনা যেখানে গভীর হয় ভাষা সেখানে দুর্বল হয়। আমি মনে করি বিদায়ী ইউএনও একজন শিক্ষক পিতার শ্রেষ্ঠ সন্তান। আমি উনাকে প্রশাসক হিসেবে নয় একজন ভালো মানুষ হিসেবে জানি। উনি অফিসে থাকলে অফিস আলোকিত হয়ে উঠে। আমাদের মনের গভীরে উনি চিরদিনই বেঁচে থাকবে।
বিদায়ী নির্বাহী কর্মকর্তা কানিজ ফাতেমা অশ্রুসিক্ত ভারাক্রান্ত কন্ঠে বলেন, বিদায় শব্দটি আসলেই অনেক কষ্টের। অনেক স্মৃতি চাঁদপুরে রয়ে গেছে। চাঁদপুরে যোগদানের পর থেকেই সবার সহযোগিতা আমি পেয়েছি। নিজের মনের মত করে অফিসটাকে সাঁজাতে চেয়েছি। একসাথে কাজ করতে গেলে মনের সাথে সবার মিল থাকতে হবে। ১০ বছরের চাকুরি জিবনে চাঁদপুরের মতো এমন ভালোবাসা কোথাও পাবো না। চাঁদপুরের মানুষগুলো সত্যিই চাঁদের মতো।
নবাগত নির্বাহী কর্মকর্তা সানজিদা শাহনাজ বলেন, বিদায়ী অনুষ্ঠান আসলে সবসময়ই বেদনাদায়ক। বদলি হওয়াটা আমাদের চাকুরির অংশ। অশ্রুসিক্ত বিদায় দেখে বুঝা যায় কতটা আন্তরিক ছিলেন এই স্যার। আমি চেষ্টা করবো প্রশাসনের ভাবমূর্তি অক্ষুন্ন রাখার। স্যারের পাশে যেভাবে আপনারা পাশে ছিলেন আশাকরি আমার কাজের পাশেও আপনারা থাকবেন।
অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন, ১নং বিষ্ণুপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শামিম খান, ৮নং বাগাদী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোঃ বিল্লাল, রাজরাজেশ্বর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হযরত আলী বেপারী, ৫নং রামপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আল মামুন পাটওয়ারী, ১৩ নং হানারচর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুস সাত্তার রাঢ়ী, মৈশাদি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মনিরুজ্জামানা মানিক, চান্দ্রা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান খান জাহান আলী কালু, ইব্রাহিমপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আবুল কাশেম, আশিকাটি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বিল্লাল হোসেন (মাস্টার), ৯নং ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান তাজুল ইসলাম, বাপসা’র সাধারণ সম্পাদক এমএ কুদ্দুস রোকন, উপজেলা প্রকৌশলী এসএম রাশেদুল, উপজেলা শিক্ষা অফিসার নাজমা বেগমসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাবৃন্দ।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *