পুরাণবাজারে সেই এলাকা পরিদর্শনে অ্যাডিশনাল এসপি জাহেদ পারভেজ চৌধুরী

আশিক বিন রহিম :
চাঁদপুর শহরের পুরাণবাজারে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে সংঘটিত দু’গ্রুপের সন্ত্রাসী হামলা, ভাংচুর ও সংঘর্ষ এবং শামীম গাজী (২৬) নিহত হওয়ার ঘটনায় ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন চাঁদপুর জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মোঃ জাহেদ পারভেজ চৌধুরী। ৭ জুলাই রবিবার দুপুরে তিনি পুরাণবাজারের মেরকাটিজ রোড ও মেয়র রোডের মোড়ে অবস্থান করে ওই ঘটনায় হত্যার সাথে জড়িত আসামীদের বিষয়ে এলাকাবাসীর কাছ থেকে তথ্য-উপাত্থ সম্পর্কে জানেন এবং বর্তমান পরিস্থিতির খোঁজ খবর নেন।

এসময় চাঁদপুর সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ নাসিম উদ্দিন, পুরাণবাজার পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ও পুলিশ পরিদর্শক মোঃ মাসুদসহ সঙ্গীয় ফোর্স উপস্থিত ছিলেন।


উপস্থিত এলাকাবাসীর উদ্দেশ্যে অতিরিক্ত জেলা পুলিশ সুপার সদর সার্কেল মো. জাহেদ পারভেজ চৌধুরী বলেন, অপরাধী যেই হোক তাকে শাস্তি পেতেই হবে। যারা সেই দিনের ঘটনার সঙ্গে জড়িত এবং এলাকায় মাদক বিক্রি করে ওইসব অপরাধীদের ধরার জন্য পুলিশের তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে। কোন অপরাধীকে আপনারা আশ্রয় প্রশ্রয় দিবেন না। তবে এই ঘটনায় নিরীহ কোন মানুষ যাতে হয়রানির শিকার না হয়, সে ব্যাপারে আমরা সতর্ক রয়েছি।
তিনি বলেন, এখন থেকে একজন অপরাধী কিংবা মাদক কারবারি যাতে এই এলাকায় প্রবেশ করতে না পারে সেদিকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সজাগ দৃষ্টি রয়েছে। পাশাপাশি এলাকাবাসীকেও সজাগ থাকতে হবে। এলাকার শান্তি শৃঙ্খলা রক্ষা করতে হলে সবার আগে এলাকার মানুষকেই এগিয়ে আসতে হবে।
উল্লেখ্য, চাঁদপুর শহরের পুরাণবাজার মেরকাটিজ রোড ও মধ্য শ্রীরামদী নতুন রাস্তা মোড়ে ২৯ জুন রাত সাড়ে ৮ টায় স্থানীয় দু’গ্রুপের মধ্যে এলাকার আধিপত্য নিয়ে ব্যাপক সংঘর্ষে হয়। সংঘর্ষ চলাকালে বাড়ি ফেরার পথে শামীম গাজী(১৮) নামে এক নিরীহ পথচারী যুবক নিহত হয়। এছাড়া হামলায় মৎস্য ব্যবসায়ী খোকন খার বাড়ির অটো গ্যারেজ ও মানিকের মুদির দোকান ভাঙচুর করা হয়। ওই সময় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে পুলিশ ১০ রাউন্ড সর্টগানের গুলি ছুড়ে। এই ঘটনায় চাঁদপুর সদর মডেল থানায় পৃথক দুইটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *