মিঠা পানির মাছ উৎপাদনে বিশ্বে বাংলাদেশের অবস্থান তৃতীয়

চাঁদপুরে মৎস্য সপ্তাহের উদ্বোধন ও পুরস্কার বিতরণ

: নিজস্ব প্রতিবেদক :
‘বেশি বেশি মাছ চাষ করি বেকারত্ব দূর করি’ এ প্রতিপদ্যকে সামনে রেখে চাঁদপুরে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ-২০২১ এর উদ্বোধন ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। ২৯ আগস্ট রোববার সকালে চাঁদপুর জেলা প্রশাসন ও মৎস্য অধিদপ্তরের আয়োজনে সদর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে এই আয়োজন অনুষ্ঠিত হয়।
জেলা মৎস্য কর্মকর্তা গোলাম মেহেদী হাসানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন চাঁদপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক নাসির উদ্দিন সরওয়ার।
সদর উপজেলার সহকারি মৎস্য কর্মকর্তা মাহবুবুর রশিদের পরিচালনায় আরো বক্তব্য রাখেন, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম নাজিম দেওয়ান, নির্বাহী কর্মকর্তা সানজিদা শাহনাজ, চাঁদপুর প্রেসক্লাব সভাপতি ইকবাল হোসেন পাটোয়ারী, সাধারণ সম্পাদক রহিম বাদশা, কোস্টগার্ড স্টেশন কমান্ডার লেফটেনেন্ট এম সাদিক হোসেন, সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আইয়ুব আলী বেপারী, মৎস্য উদ্যোক্তা সামিয়া রহমান, সদর উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আবিদা সুলতানা, উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা সুদীপ ভট্টাচার্য প্রমূখ।
প্রধান অতিথির বক্তব্যো অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক নাসির উদ্দিন সরওয়ার বলেন আমাদের চাহিদা অসীম, যেহেতু আমরা অনেক লোক সেই ক্ষেত্রে আমাদের এই আমিষের চাহিদা পূরণ করতে হবে। আমরা জানি সারাবিশ্বে মিঠা পানির মাছ উৎপাদনে আমরা তৃতীয় স্থানে আছি। মৎস্যচাষী, জেলা মৎস্য কর্মকর্তা ও সকলের সমন্বিত প্রচেষ্টায় আমরা বিশ্বে তৃতীয় স্থান লাভ করেছি। আমিষের চাহিদা পূরণেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছি।
তিনি বলেন, সবকিছু সরকারের একার পক্ষে সমাধান দেওয়া সম্ভব হবে না। বেসরকারি খাতকে এগিয়ে আসতে হবে। উদ্যোক্তা সৃষ্টি করতে হবে। উদ্যোক্তাগণ নিজের দক্ষতার মাধ্যমে কর্মসৃজন করবে। সে ক্ষেত্রে আরো কিছু পরিবার সচ্চল হবে। সরকারের পাশাপাশি বেসরকারি অংশীদারিত্ব প্রয়োজন। সরকারের একার পক্ষে বাংলাদেশকে উন্নত বিশ্বের কাতারে নিয়ে যাওয়া সম্ভব নয়। সে ক্ষেত্রে আমাদের যে সকল উদ্যোক্তাগণ আছেন বিভিন্ন সেক্টরে তারা অবশ্যই কাজ করতে হবে।
অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক আরো বলেন, আমাদের বেকারত্ব সমস্যা দূর করতে হবে। এক্ষেত্রে আমাদের সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টা চালিয়ে যেতে হবে। আমাদের চাঁদপুর জেলার একটা সুনাম রয়েছে, ইলিশের বাড়ি চাঁদপুর। সেই সুনাম আমাদের ধরে রাখতে হবে। এক্ষেত্রে আমাদের মা ইলিশ রক্ষা এবং জাটকা নিধন যেন না হয় ।
জেলা প্রশাসন, বাংলাদেশ পুলিশ , কোস্টগার্ড ও মৎস্য কর্মকর্তা আমরা একযোগে কাজ করে থাকি। এ জন্য জেলে ভাইদেরকে বলছি, যে সময় সরকার ঘোষিত মাছ ধরা বন্ধ থাকে সে সময় আপনারা মাছ ধরবেন না। দেশের সম্পদ রক্ষা করা আমাদের সকলের দায়িত্ব।
অনুষ্ঠান শেষে ৪টি ক্যাটাগরিতে চারজন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে পুরস্কৃত করা হয়। পুরস্কার প্রাপ্তরা হলো উদ্যোগতা হিসেবে চাঁদপুর পৌরসভার মেয়রের ন্ত্রী সামিনা রহমান, মাছের গুণগত মানের রেনু উৎপাদনে তারেক ইমাম চৌধুরী, মাছ উৎপাদনে মো. মঈন উদ্দিন এবং বিশেষ সম্মাননা দেয়া হয় চাঁদপুর প্রেসক্লাবকে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *