যেকোনো মূল্যে আমরা জাতির পিতার সম্মান অক্ষুন্ন রাখবো

এইচ.এম নিজাম :
‘জাতির পিতার সম্মান, রাখবো মোরা অম্লান’ এই স্লোগানকে ধারণ করে কুষ্টিয়া জেলায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য ভাঙার প্রতিবাদে চাঁদপুর জেলায় কর্মরত জেলা পর্যায়ের সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
গতকাল শনিবার সকালে চাঁদপুর জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে আয়োজিত প্রতিবাদ সভায় সভাপতির বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক মোঃ মাজেদুর রহমান খান।
তিনি তার বক্তব্যে বলেন, আজকে যারা এই প্রতিবাদ সভায় উপস্থিত হয়েছেন, তাদের হৃদয়ে রক্তক্ষরণ হচ্ছে। অশ্রুসিক্ত চোখ। এর কারণ, জাতির পিতার সম্মান ক্ষুন্ন করতে চায় দুষ্কৃতকারীরা। যে মহান জাতির পিতার জন্ম না হলে এই দেশ স্বাধীন হতো না। আমরা একটি স্বাধীন ভূখণ্ড পেতাম না। আজকে তার সম্মানহানি করতে ষড়যন্ত্রকারী চক্রান্তকারী দুষ্কৃতীরা মাথাচাড়া দিয়ে উঠছে।
তারা ভাস্কর্যের উপর আঘাত হানেনি। তারা আঘাত হেনেছে জাতির পিতার আদর্শের প্রতি। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হচ্ছে আমাদের জাতীয় সম্পদ। তারা জাতীয় সম্পদের উপর আঘাত হেনেছে। যেকোনো মূল্যে আমরা জাতির পিতার সম্মান অক্ষুন্ন রাখবো। এখনই সময় দুষ্কৃতিকারীদের বিরুদ্ধে আমাদের রুখে দাঁড়ানোর। কারণ, দুস্কৃতিকারীরা জাতির পিতার ভাস্কর্যের উপর আঘাত হানেনি। তারা বাঙালি জাতির মেরুদণ্ড উপর আঘাত হেনেছে। তিনি বলেন, আমরা যারা প্রশাসনের কর্মকর্তা রয়েছি,সকলে মিলে আমাদের কাজের মধ্য দিয়ে সকল শ্রেণী-পেশার মানুষকে একটি আদর্শিক জায়গায় নিয়ে আসতে চাই। আমরা যদি সকলে ঐক্যবদ্ধ হতে পারি তাহলে বঙ্গবন্ধু ও স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব নিয়ে যারা ষড়যন্ত্র করছে, তাদেরকে নিমিষেই রুখে দেওয়া সম্ভব। অতএব সকলে ঐক্যবদ্ধ হয়ে এসকল ষড়যন্ত্রকারীরা দুষ্কৃতিকারীদের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে।
জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ জিয়াউর রহমান বলেন, স্বাধীনতা যুদ্ধে ষড়যন্ত্রকারী ও আজকে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য বিরোধিতাকারীরা একই সূত্রে গাঁথা। এদেরকে সকলে মিলে সম্মিলিতভাবে প্রতিহত করতে হবে। তিনি বলেন,সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা এদেশের নাগরিক। অতএব, আমাদের দেশের জাতির পিতার সম্মান অক্ষুন্ন রাখতে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের দায়িত্ব রয়েছে। আমরা আমাদের অবস্থান থেকে জাতির পিতার সম্মান অক্ষুণ্ণ রাখতে কাজ করে যাব।
জেলা পুলিশ সুপার মাহবুবুর রহমান (পিপিএম বার) বলেন, বিজয়ের মাস এলেই ষড়যন্ত্রকারীরা মাথাচাড়া দিয়ে ওঠে। ওরা এই মাসে বিভিন্নভাবে নাশকতা করতে চায়। দুষ্কৃতকারীরা বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য আঘাত করেনি। তারা আঘাত করেছে বাংলাদেশের স্বাধীন সত্তার উপর।
তিনি বলেন, দুষ্কৃতকারীরা বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যের উপর আঘাত করে বাংলাদেশের মূলে আঘাত করতে চায়। আমরা এদেরকে কঠোরভাবে প্রতিহত করব।
অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ জামান এর পরিচালনায় অন্যান্যদের মধ্যে আরো বক্তব্য রাখেন, জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ জিয়াউর রহমান, পুলিশ সুপার মাহবুবুর রহমান (পিপিএম বার), চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ শামসুল আলম, চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. হাবিবুল করিম, সিভিল সার্জন ডাক্তার মোঃ সাখাওয়াত উল্লাহ, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ শাহাবুদ্দিন, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কানিজ ফাতেমা, এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী ইউনুস বিশ্বাস, চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক এএইচএম আহসানুল, কালেক্টরেট কর্মকর্তা কর্মচারী সমিতির কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা সাইফুল ইসলাম, তৃতীয় শ্রেণীর কর্মচারী সমিতির সভাপতি মিজানুর রহমান প্রমুখ।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *