ষাটনল বেড়িবাধ-কালীপুর বাজার সড়কে খানা-খন্দকে ভরা

কামরুজ্জামান হারুন :
মতলব উত্তরের ষাটনলের বেড়িবাঁধের উত্তর দিকে কালীপুর বাজার সড়কে বেহাল দশা। বিশেষ করে ষাটনল কনু মার্কেট থেকে কালীপুর বাজার পর্যন্ত দুই কিলোমিটার সড়কে খানা খন্দকে ভরা। যেন দেখার কেউ নেই।
সরেজমিন গিয়ে দেখা গেছে, এ সড়কে ছোট বড় অর্ধশত গর্ত রয়েছে। ফলে যানচলাচল অনুপযোগী।
এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ সড়ক। এটি ষাটনল লঞ্চঘাট থেকে কালীপুর লঞ্চ ঘাট পর্যন্ত সেতুবন্ধন সড়ক। মেঘনা ধনাগোদা সেচ প্রকল্পের বেড়িবাঁধের ওপর দিয়ে এ সড়ক দিয়ে প্রতিদিন শতশত যানচলাচল করে।
বিশেষ করে ইমামপুর পল্লী মঙ্গল উচ্চ বিদ্যালয়, কালীপুর উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ, বিভিন্ন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রী, ষাটনল পর্যটন কেন্দ্র, ডায়াগনস্টিক কেন্দ্র, উপ- স্বাস্থ্য কেন্দ্রে, এমনকি কালীপুর ও ষাটনল বাবু বাজারের ব্যবসায়ীসহ বহু লোকজন যাতায়াত করে।
এ গুরুত্বপূর্ণ সড়কে যানচলাচল করতে গিয়ে প্রায়ই দুর্ঘটনায় কবলিত হয়।
ষাটনল ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ও ইউপি সদস্য হারুন অর রশিদ বলেন, কালীপুর বাজারটি উপজেলার প্রাচীন ও ঐতিহ্যবাহী বাজার। এটি নদীর পাড়ে অবস্থিত। এখানে একটি লঞ্চঘাটও রয়েছে।
ফলে প্রতিদিন শতশত মানুষের সমাগম হয়। তাছাড়া সপ্তাহে দুই দিন হাট থাকায় অনেক লোকের সমাগম হয়। তাই ষাটনল বেড়িবাঁধের সড়কটি ষাটনল ইউনিয়নের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক। এ সড়কের দ্রুত সংস্কার প্রয়োজন।
ইমামপুর পল্লী মঙ্গল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক সরকার আবুল কালাম আজাদ বলেন, আমাদের বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীরা এ সড়কে চলাচল করে। সড়কের বেহাল দশায় যাতায়াত করতে খুবই অসুবিধা হয়।
অটো চালক ইয়াছিন জানান, প্রতিদিন এ সড়কে চলতে গিয়ে হিমশিম খেতে হয়।মাঝে মধ্যে উল্টে গিয়ে দুর্ঘটনার শিকার হতে হয়। এমনকি অটোর ও ক্ষতি হয়। আমরা সড়কের সংস্কার চাই।
ষাটনল ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ও উপজেলা কমিউনিটি পুলিশং সভাপতি, বীর মুক্তিযোদ্ধা গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী বলেন, এটি একটি জনগুরুত্বপূর্ণ সড়ক।
এ সড়কে প্রতিদিন শত শত যানবাহন চলাচল করে। তাই জরুরী ভিত্তিতে এ সড়কের সংস্কার কাজ করা প্রয়োজন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *