১১ বছর পর চাঁদপুর জেলা ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা

কয়েকজনের নাম-পদবি অপ্রকাশিত
ইব্রাহীম রনি :
দীর্ঘ ১১ বছর পর চাঁদপুর জেলা ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। ৫ মার্চ শনিবার ছাত্রলীগের ভ্যারিফায়েড ফেসবুক পেইজে ১১ পৃষ্ঠার কমিটিতে বিভিন্ন পদে স্থান পাওয়া ২৭৬ জনের নাম পদবির তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। ছাত্রলীগের সভাপতি আল-নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। এতে দেখা যায়, ঘোষিত কমিটি কয়েকটি পাতা প্রকাশ করা হয়নি। এ কারণে পূর্ণাঙ্গ কমিটির সদস্য কত এবং আরও কারা কমিটিতে আছেন তাদের নাম জানা যায়নি। এছাড়া কত বছরের জন্য এ কমিটি দেয়া হয়েছে তাও উল্লেখ করা হয়নি।
১১ পৃষ্ঠার প্রাপ্ত তালিকা অনুযায়ী কমিটির সভাপতি মো. জহির উদ্দিন, সহ-সভাপতি ৫৯ জন, সাধারণ সম্পাদক মো. সাদ্দাম হোসেন খান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ১১ জন, সাংগঠনিক সম্পাদক ১১ জন, প্রচার সম্পাদক ১ জন, উপপ্রচার সম্পাদক ৩ জন, দপ্তর সম্পাদক ১ জন, উপদপ্তর সম্পাদক ৩ জন, গ্রন্থনা ও প্রকাশনা সম্পাদক ১ জন, উপগ্রন্থনা সম্পাদক ৪ জন, শিক্ষা ও পাঠ্যক্রম বিষয়ক সম্পাদক ১ জন, উপ শিক্ষা ও পাঠ্যক্রম বিষয়ক সম্পাদক ৪ জন, সাংস্কৃতিক সম্পাদক ১ জন, উপ সাংস্কৃতিক সম্পাদক ৫ জন, অর্থ সম্পাদক ১ জন, উপ অর্থ সম্পাদক ৪ জন, আইন বিষয়ক সম্পাদক ১ জন, উপ আইন বিষয়ক সম্পাদক ৪ জন, পরিবেশ সম্পাদক ১ জন, উপ পরিবেশ সম্পাদক ৪ জন, স্কুল ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক ১ জন, উপ স্কুল ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক ৩ জন, বিজ্ঞান ও তথ্য প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ১ জন, উপ বিজ্ঞান ও তথ্য প্রযুক্তি সম্পাদক ৪ জন, সমাজসেবা সম্পাদক ১ জন, উপ সমাজসেবা সম্পাদক ৪ জন, ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক ১ জন, উপ ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক ৪ জন, পাঠাগার বিষয়ক সম্পাদক ১ জন, উপ-পাঠাগার বিষয়ক সম্পাদক ৪ জন, তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক ১ জন, উপ তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক ৪ জন, ছাত্রী বিষয়ক সম্পাদক ১ জন, উপ ছাত্রী বিষয়ক সম্পাদক ৩ জন, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক ১ জন, উপ ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক ৪ জন, কৃষি বিষয়ক সম্পাদক ১ জন, উপ কৃষি বিষয়ক সম্পাদক ৪ জন, গণশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক ১ জন, উপ গণশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক ৪ জন, ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সম্পাদক ১ জন, উপ ত্রাণ ও দুর্যোগ বিষয়ক সম্পাদক ৪ জন, সাহিত্য সম্পাদক ১ জন, উপ সাহিত্য সম্পাদক ৪ জন, গণযোগাযোগ ও উন্নয়ন সম্পাদক ১ জন, উপ গণযোগাযোগ ও উন্নয়ন সম্পাদক ৩ জন, মানব সম্পদ উন্নয়ন সম্পাদক ১ জন, উপ মানব সম্পদ উন্নয়ন সম্পাদক ৪ জন, আপ্যায়ণ সম্পাদক ১ জন, উপ আপ্যায়ণ সম্পাদক ৪ জন, ছাত্রবৃত্তি সম্পাদক ১ জন, উপ ছাত্রবৃত্তি সম্পাদক ৪ জন, মুক্তিযুদ্ধ ও গবেষণা সম্পাদক ১ জন, উপ মুক্তিযুদ্ধ ও গবেষণা সম্পাদক ৪ জন, প্রশিক্ষণ সম্পাদক ১ জন, উপ প্রশিক্ষণ সম্পাদক ৪ জন, নাট্য ও বিতর্ক সম্পাদক ১ জন, উপ নাট্য ও বিতর্ক সম্পাদক ৪ জন, কর্মসংস্থান বিষয়ক সম্পাদক ১ জন, উপ কর্মসংস্থান বিষয়ক সম্পাদক ৪ জন, সহ সম্পাদক ২৯ জন এবং ২৮ জন সদস্যের নাম পাওয়া গেছে। অপ্রকাশিত কয়েকটি পৃষ্ঠায় থাকা নেতৃবৃন্দের নাম পরিচয় পাওয়া যায়নি।
পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা সম্পর্কে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. জহির উদ্দিন খান বলেন, দীর্ঘ ১১ বছর পর চাঁদপুর জেলা ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি হয়েছে এ জন্য আমরা আনন্দিত। এতোদিন পর ছাত্রলীগের ছেলেরা একটা পরিচয় পেয়েছে এ জন্য সবাই খুশি। এ জন্য আমরা শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি আপা, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি আল-নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য ভাইয়ের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই।
তিনি বলেন, ঘোষিত কমিটিতে আওয়ামী লীগ ও কেন্দ্রীয় নেতাদের অনুরোধে কিছু নাম ঢুকেছে- যাদেরকে আমরা চিনি না। এ কারণে আমরা কিছুটা হতাশ। আমরা যে তালিকা দিয়েছি সেখানে সিনিয়র-জুনিয়র মেনটেইন করে দিয়েছি। কিন্তু ঘোষিত কমিটির আগে-পিছে কিছু বিতর্কিত কিছু নাম আছে। তবে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ আমাদেরকে বলেছেন, বিতর্কিত কারো নাম থাকলে চিঠি দিয়ে সেন্ট্রালকে আমরা জানালে তাদেরকে অব্যাহতি দেয়া হবে।
কমিটির পরিধি সম্পর্কে তিনি বলেন, প্রাপ্ত তালিকার মধ্যে সহসভাপতি, সহ সম্পাদক ও সদস্যদের কয়েকজনের নাম পাওয়া যায়নি।
তিনি জানান, জেলা ছাত্রলীগের সর্বশেষ পূর্ণাঙ্গ কমিটি হয়েছিল ২০১২ সালের ২০ সেপ্টেম্বর। এরপর ২০১৬ সালের ২৯ ডিসেম্বর ৮ সদস্যের একটি কমিটি ঘোষণা করা হয়। তারপর ২০২০ সালের ৫ ফেব্রুয়ারি বর্তমান কমিটি ঘোষণা করা হয়। আর প্রায় ২ বছর ২৮ দিন পর পূর্ণাঙ্গ কমিটি দেয়া হয়েছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.