যুবক শ্রেণীর জনগোষ্ঠিকে বিভিন্ন কারিগরি প্রশিক্ষণ দিতে হবে : জেলা প্রশাসক

নিজস্ব প্রতিবেদক :
গতকাল বুধবার ৯ জুন সকাল ১০টায় চাঁদপুর সদর উপজেলা পরিষদ সভাকক্ষে এটুআই কর্তৃক “কুটির, মাইক্রো,ক্ষুদ্র ও মাঝারী শিল্প প্রতিষ্ঠানে সিএমএসএমই শিক্ষাণবিশি কর্মসূচীর মাধ্যমে দক্ষতা উন্নয়ন” দু’দিন ব্যাপী ওস্তাদগণের (গঈচ) শিক্ষণবিশি ব্যবস্থাপনা বিষয়ক প্রশিক্ষক প্রশিক্ষণ (ঞঙঞ) এর উদ্ধোধন করেন অনুষ্ঠানে প্রধান চাঁদপুর জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ।
এসময় তিনি বলেন, দেশের কর্মহীন মানুষের কর্মঠ করে গড়ে তোলার জন্য প্রশিক্ষণ প্রয়োজন। উপযুক্ত প্রশিক্ষণ ও আয়বর্ধক কাজে অন্তর্ভুক্তকরণের মাধ্যমে বেকারত্ব দূর করা যায়। উপযুক্ত প্রশিক্ষণ ও আয়বর্ধক কাজের মাধ্যমে দক্ষ জনশক্তি ও তাদের পণ্য রপ্তানি করা যায়। জনশক্তিকে শক্তিতে তৈরী করতে হলে প্রশিক্ষণের প্রয়োজন। প্রশিক্ষণের মাধ্যমে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করা যায়। কারণ, প্রশিক্ষণের মাধ্যমে অজানা কিছুতথ্য এর মাধ্যমে জানা যায়। যা জীবনে প্রতিটি ক্ষেত্রে কাজে লাগে। একজন প্রশিক্ষণ নেয়া ব্যক্তি তার কর্মক্ষেত্রে ভাল স্থান তৈরী করতে পারে। তাই জীবনকে সুন্দরভাবে গড়ে তোলার জন্য প্রশিক্ষণ নেয়া উচিৎ।
তিনি আরো বলেন, জনশক্তি তৈরী করতে হলে আমাদের যুবক শ্রেণীর জনগোষ্ঠিকে বিভিন কারিগরি প্রশিক্ষণ প্রদান করতে হবে। কেননা বিশ্বের বেশীরভাগ মানুষই যুবক। উন্নয়নমূলক কাজে যুবসমাজ গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে। প্রশিক্ষিত যুবসমাজ প্রতিটি দেশের উন্নয়নের চাবিকাঠি। তাই জনসংখ্যাকে বোঝা না মনে করে তাদের সঠিক ব্যবহার নিশ্চিত করলে তা দেশের জন্য আশির্বাদ হয়ে আসবে। বিভিন্ন প্রশিক্ষণও কারিগরি জ্ঞানের মাধ্যমে জনশক্তিতে পরিনত করতে পারলে দেশ উন্নত হবে।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার সানজিদা শাহনাজের বিশেষ অতিথির চাঁদপুর সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম নাজিম দেওয়ান , সহকারী কমিশনার (ভূমি)হেলাল চৌধুরী, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আবিদা সুলতানা প্রমুখ।
বালিয়া কম্পিউটার প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের পরিচালক মো:তানভীর হোসেনের পরিচালনায় “কুটির, মাইক্রো,ক্ষুদ্র ও মাঝারী শিল্প প্রতিষ্ঠানে সিএমএসএমই শিক্ষাণবিশি কর্মসূচীর ৪০জন প্রশিক্ষক প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *